পুরনো সিল্ক বা বেনারসি শাড়ি ব্যবহার করে তৈরি করুন ৬ রকমের স্টাইলিশ পোশাক।

একই পোশাক যদি বার বার পরতে হয়, তা'হলে একঘেয়েমি আসতে বাধ্য। বিশেষত সিল্ক বা বেনারসি শাড়ির ক্ষেত্রে দেখা যায় পাঁচ ছয় বার পরার পরেই সে'টার প্রতি আগ্রহ কমে আসে।
আর তেমনটা ঘটলে আপনার আলমারির সেই সব দামী বেনারসি বা সিল্ক শাড়িগুলো বোঝা হয়ে দাঁড়ায়। তবে চিন্তা করবেন না, এই প্রবন্ধে দেওয়া রইল এমন কিছু টিপস যে'গুলোর মাধ্যমে আপনি আপনার পুরনো বেনারসি বা সিল্কের শাড়িগুলো নিয়ে বানিয়ে ফেলতে পারবেন নতুন ডিজাইনের অন্যান্য পোশাক। সে'গুলো আপনার ওয়ার্ডরোবে ভ্যারাইটি যোগ করবে আর আপনাকে করে তুলবে স্টাইলিশ।

জ্যাকেট স্টাইল।

আজকাল এই ধরণের জ্যাকেট বেশ চলছে আর এগুলোকে সহজেই যে কোনও সময়া পরা যায়। সিল্কের শাড়ি অব্যবহারে নষ্ট না করে তা দিয়ে বানিয় ফেলুন এই স্মার্ট জ্যাকেট।

সুন্দর আনারকলি স্যুট।

আপনার পুরনো সিল্ক বা বেনারসি শাড়িকে ফ্যাশনেবল করে নতুন ভাবে ব্যবহার করতে চাইলে সে'গুলো দিয়ে আপনি বানিয়ে ফেলতে পারেন স্টাইলিশ অনারকলি স্যুট। এ'তে গোটা শাড়িটাই ভালো ভাবে ব্যবহৃত হবে। যেমন এ'খানে দেখা যাচ্ছে, আঁচল দিয়ে আপনি সহজেই বানিয়ে ফেলতে পারেন মানানসই ব্লাউজ।

হেভি দুপট্টা (ওড়না)।

আপনার পুরনো শাড়ি যদি হেভি আর এক রঙের হয় তা'হলে তা দিয়ে আপনি নিজের পছন্দমত দুপট্টা (ওড়না) বানিয়ে নিতে পারেন। এই ধরণের দুপট্টা আপনি যে কোনও ধরণের সিম্পল স্যুটের সঙ্গে ম্যাচ করে পরতে পারেন। এমন ভাবে পরলে আপনাকে দেখতেও চমৎকার লাগবে।

স্কার্ট।

যদি আপনার সিল্কের শাড়ি যথেষ্ট ভারি হয় তাহলে আপনি সে'টা দিয়ে স্কার্ট বানিয়ে নিতে পারেন। সেই স্কার্টের ওপর পরার জন্য বানিয়ে নিন একটা স্টাইলিশ টপ। খেয়াল রাখবেন, এই ধরণের স্কার্টের সঙ্গে পরার টপ যেন বেশি হেভি  না হয়। প্লেন টপই এই স্কার্টের সঙ্গে মানাবে ভালো।

পলাজো।

সিল্ক আর বেনারসির ফেব্রিক দেখতে খুব সুন্দর আর তা দিয়ে দিব্যি বানিয়ে নিতে পারেন ট্রাউসার বা পালাজো। এই ধরণের আধুনিক পালাজোতে আপনাকে বেশ মানবে।

লহেঙ্গা।

সিল্কের কোনও ভারি শাড়ি পরে পরে যদি আপনি বোর হয়ে গিয়ে থাকেন, তাহলে তা দিয়ে আপনি বানিয়ে ফেলতে পারেন সুন্দর লহেঙ্গা। আর এই লহেঙ্গা আপনি যে কোনও পার্টি বা অনুষ্ঠানে পরে যেতে পারেন, এ'তে আপনাকে বেশ স্টাইলিশ দেখাবে।

 

Translated by Tanmay Mukherjee

loader